সদ্যপ্রাপ্ত

এনায়েতুল্লাহ আব্বাসীকে মোবারকবাদ জানালেন আজহারী

Advertisement
Advertisement

মিজানুর রহমান আজহারীর তার ফেসবুকে লিখেছেন, মুহতারাম এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী সাহেবকে মোবারকবাদ। সকল ইস’লামপন্থীদের প্রতি দরদ রেখে ইস’লামকে রিপ্রেজেন্ট করলে, এভাবেই সর্বমহল থেকে এপ্রিসিয়েশন অর্জিত হয় এবং এতে করে ইস’লামের জন্য ঐক্যবদ্ধ হওয়ার উপলক্ষ্য তৈরী হয়।

আর দলমত নির্বিশেষে ইস’লামের জন্য তাওহিদপ্ন্থীরাও এভাবে সব একাকার হয়ে যায়। উম্মাহ দরদী না হয়ে, উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ করা এবং উজ্জীবিত করা অসম্ভব। প্রত্যেক ইনফ্লুয়েন্সিয়াল আলেম ও দ্বা’য়ীদের উচিত— তাদের ইনফ্লুয়েন্সকে কাজে লাগিয়ে, এদেশের লোকদের মাইন্ডসেট পরিবর্তন করা।

ইস’লামের ব্যাপারে পজেটিভ মাইন্ডসেট তৈরী করা। আপনাকে জাগতে হবে, জাগাতে হবে এবং ভ্যালু ক্রিয়েট করতে হবে, তা নাহলে লোকজন আপনাকে শুনবে না, মানবেও না। আর সেটা হবে গবেষণাধর্মী, সমাজমুখী এবং উৎপাদনমুখী কাজের মাধ্যমে। আলেম ওলামাদের কুরআন সুন্নাহর জ্ঞানের পাশাপাশি কনভেনশনাল জ্ঞানেও সমানভাবে দক্ষ হতে হবে।

চলমান জাহেলিয়াতের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আমা’দের আলেম ওলামাদের তেমন কোন প্রজেক্ট নেই ,কারন তারা নিজেরা নিজেদের মধ্যেই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়তে বেশী ভালবাসে। কাফির, বাতিল এবং ইহুদিদের দালাল— এই ডায়লগগুলো যেন একশ্রেণীর আলেম ওলামাদের ঠোঁটে সবসময় লেগে থাকে। এসব থেকে ফিরে আসতে হবে।

অনেক হয়েছে, আর না। একে অন্যকে শত্রু জ্ঞান না করে “রুহামাউ বাইনাহুম” তথা একে অন্যের প্রতি কোমল ও সৌহার্দপূর্ণ হতে হবে। সকল ইস’লামপন্থীদের প্রতি হৃদয়ভরা দরদ নিয়েই, এক সাথে ইস’লামের জন্য কাজ করে যেতে হবে।

Advertisement

Advertisement

এছাড়াও চেক করুন

সিলেটে ২০০ কেজি ওজনের মাছ তুলতে আনা হল ডুবুরি, পরে দেখা গেল ৬০০ গ্রাম

Advertisement চায়ের দেশ সিলেটের গোলাপগঞ্জের কুড়া নদীতে এক শৌখিন শি’কা’রির বড়শিতে ধ’রা পড়া পাগলা মাছ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *